Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

‘‘ সিটিজেন চার্টার’’

বন্দীদের সাথে দেখা স্বাক্ষাতের নিয়মাবলী।

১) ডিটেন্যু ও নিরাপদ হেফাজতী বন্দীদের দেখা করতে হলে সংশ্লিষ্ট জেলা ম্রাজিস্ট্রেট ও আদালতের     

    অনুমতি প্রয়োজন।

২) দেখা স্বাক্ষাত সর্বোচ্চ ৩০ (ত্রিশ) মিনিটের মধ্যে শেষ করতে হবে।

৩) বন্দীদের সাথে দেখা স্বাক্ষাত করার জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সা নিষিদ্ধ। কাউকেও টাকা দিবেন    

    না, কেউ টাকা দাবী করলে নিম্ন লিখিত মোবাইল ও টেলিফোন নম্বরে জানাতে পারেন অথবা

    অনুসনদ্ধানে রক্ষিত অভিযোগ রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করতে পারেন।

৪) মোবাইল বা অন্য কোন নিষিদ্ধ দ্রব্য নিযে সাক্ষাত কক্ষে প্রবেশ করা যাবে না।

৫) মোবাইল জমা রাখার জন্য নির্দিষ্ট স্থান নির্ধারিত রয়েছে। নির্ধারিত স্থানে আপনার মোবাইলটি জমা

    রাখুন।

৬) সাক্ষাত করার জন্য আবেদন পত্র দাখিল করতে হয়। আপনি যদি আবেদনপত্র লিখিতে না পারেন

    তাহলে সাক্ষাত কক্ষের পার্শ্বে কর্তব্যরত করারক্ষীর নিকট হতে শ্লিপ সংগ্রহ করে সাক্ষাত কক্ষে প্রবেশ

    করুন।

৭) সাক্ষাত প্রার্থীদের সহজ ও ন্যায্য মূল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সরবরাহের লক্ষ্যে সাক্ষাত কক্ষের

    সামনে ক্যান্টিন রয়েছে। ক্যন্টিনে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ন্যায্য মুল্যে বিক্রয় হচ্ছে। আপনি

    ক্যান্টিন থেকে মালামাল ক্রয় করে বন্দীকে সরবরাহ কারতে পারেন। মালামাল ক্রয়ের জন্য দাম

    বেশি রাখলে বা ওজনে কম দিলে নিম্নলিখিত নম্বরে জানাতে পারেন অথবা অনুসনদ্ধানে রক্ষিত

    অভিযোগ রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করুন।

ক) তত্ত্বাবধায়ক টেলিফোন নং-০৬৪১-৬৫২০৯,  মোবাইলঃ০১৫৫২৬৩৪৪২৯

 

বিশ্রামাগারের নিয়মাবলী

 

১) বিশ্রামাগারে পর্যাপ্ত বসার ব্যবস্থা রয়েছে।

২) বিশ্রামাগারে বৈদুতিক পাখা, পানীয় জল এবং টয়লেটের সু-ব্যবস্থা রয়েছে।

৩) অফিসে কোন প্রয়োজনীয় সংবাদ পৌছাতে হলে অনুসনদ্ধানের সাথে যোগাযোগ করুন।

৪) বিশ্রামাগারে অবস্থানকালে কোন প্রকার অসুবিধা হলে কর্তব্যরত প্রধান কারারক্ষী/কারারক্ষীকে         

    অবহিত করুন।   

 

জামিন সংক্রান্ত নিয়মাবলী

 

১) জামিনে মুক্তিযোগ্য বন্দীদের তালিকা নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গানো আছে।

২) জামিননামা পৌছানোর ব্যপারে নিশ্চিত হওয়া সত্বেও নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গানো জামিন তালিকায়     

    আপনার বন্দীর নামটি খুজে দেখুন। নাম না থাকলে অনুসনদ্ধানে খবর নিন।

৩) যে সব বন্দীর জামিননামায় ভুল আছে তাদের তালিকাও নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গানো আছে। তারা আজ

    মুক্তি পাবে না। তাদের আগামীকাল মুক্তি পাবার সম্ভবনা আছে। তাই অহেতুক অপেক্ষা না করে

    আগামীকাল আসুন। লাউড স্পিকারের ঘোষনা অনুযায়ী  কোন বন্দী নিধাৃরিত সময়ে মুক্ত না হলে

    অনুসনদ্ধানে যোগাযোগ করুন।

৪) বন্দীর মুক্তির জন্য কোন অর্থের প্রয়োজন হয় না। যদি কেহ অর্থ দাবি করে বা অর্থের বিনিময়ে

    জামিন ত্বরানিত করে দেবে বলে আশ্বাস দেয় তবে তৎক্ষনিক ভাবে বিষয়টি জেলার/তত্ত্বাবধায়ক/

    সিনিয়র তত্ত্বাধায়কের মোবাইল/টেলিফোন নম্বরে জানাতে পারেন অথবা অনুসনদ্ধানে রক্ষিত অভিযোগ

    রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করতে পারেন।

৫) বন্দী মুক্তির বিষয়টি আধ ঘন্টা পর-পর লাউড স্পিকারের মাধ্যমে ঘোষনা করা হচ্ছে। আপনার বিষয়টি জেনে নিন এবং তদনুযায়ী কাজ করুন।

ক) তত্ত্বাবধায়ক টেলিফোন নং-০৬১৪-৬৫২০৯     মোবাইল নং-

ওকালতনামা স্বাক্ষরের নিয়মাবলী

১) ওকালতনামা নির্দিষ্ট বাক্সে জমা দিন।

২) বন্দীর পূর্ন ঠিকানা এবং মামলা বৃত্তান্ত সঠিক ভাবে লিখে ওকালতনামা বাক্সে ফেলুন।

৩) ০১(এক) ঘন্টা অন্তর ওকালতনামা বাক্সে খুলে বন্দীর স্বাক্ষরান্তে আইজীবি/আন্তীয়-স্বজনের নিকট

হস্তান্তর করা হয়। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ওকালতনামা ফেরত না পেলে অনুসনদ্ধানে বা রির্জাভ গার্ডে কর্তব্যরত প্রধান কারারক্ষীর নিকট অথবা নিচে উল্লেখিত টেলিফোন নম্বরে অবহিত করুন।

৪) ওকালতনামা স্বাক্ষরের জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সা লেনদেন করিবেন না। কেহ ওকালতনামা স্বাক্ষরের জন্য আপনার কাছে টাকা পয়সা দাবী করলে রির্জাভ গার্ডে কর্তব্যরত প্রধান কারারক্ষীর অথবা নিম্নলিখিত টেলিফোন নম্বরে জানাতে পারেন অথবা অনুসনদ্ধানে রক্ষিত অভিযোগ রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করতে পারেন।  

          

  

বন্দীদের নিকট মালামাল সরবরাহের নিয়মাবলী

১) আপনার বন্দীর নিকট সরবরাহের নিমিত্তে মালামাল তালিকায় লিপিবদ্ধ করে কর্তব্যরত ইউনির্ফমধারী নাম ও নাম্বার যুক্ত কারারক্ষীর নিকট জমা দিন।

২) আপনার কর্তৃক দেওয়া মালামাল যত্নের সাথে আপনার বন্দীর নিকট পৌছানোর ব্যবস্থা করা হবে।

৩) মালামাল বন্দীর নিকট পৌছানোর জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সার প্রয়োজন হয় না। যদি কেহ মালামাল সরবরাহের ব্যাপারে কোন রকম অসুবিধা বা অর্থ দাবী করে তবে তৎক্ষনীক ভাবে নিম্নলিখিত টেলিফোন নম্বরে জানাতে পারেন অথবা অনুসনদ্ধানে রক্ষিত অভিযোগ রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করতে পারেন।

৪) মালামালের ভিতর কোন প্রকার অবৈধ দ্রব্য সরবরাহের চেষ্টা করবেন না। মালামাল যাচাই করে বন্দীর নিকট হস্তান্তর করা হয়ে থাকে। জমাদানকালে যদি অবৈধ মালামালের অস্তিত্ব সনাক্ত করা যায় তবে সরবরাহকারীর বিরোদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কারা অভ্যান্তরে প্রবেশের পর মালামালের মধ্যে অবৈধ দ্রব্যদি পাওয়া গেলে কারা বিধি মোতাবেক বন্দীকে সাস্তি প্রদান করা হবে।

৫) অবৈধ মালামাল প্রবেশ রোধে আপনার সহযোগিতা কামনা করা হচ্ছে।

ক) তত্ত্বাবধায়ক টেলিফোন নং-০৬৪১-৬৫২০৯     মোবাইল নং-

 

পি.সির টাকা জমার নিয়মাবলী

১) এখানে পিসির টাকা জমা নেয়া হয়।

২) পিসির টাকা জমা দেয়ার জন্য কোন আবেদন প্রয়োজন হয় না।

৩) পিসির টাকা গ্রহনের নির্ধারিত স্থানে টাকা জমা করুন। অন্য কারো কাছে টাকা জমা দিবেন না।

৪) পিসির টাকা জমা দানের ব্যাপারে কোন বাড়তি টাকার প্রয়োজন হয় না। যদি কেহ পিসির টাকা জমা দানের ব্যাপারে অহেতুক সময় ক্ষেপন বা কোন রকম অসুবিধা বা অর্থ দাবী করে তবে তা তাৎক্ষনিক ভাবে নিম্নলিখিত টেলিফোন নম্বরে জানান অথবা অনুসনদ্ধানে রক্ষিত অভিযোগ রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করুন।

৫) আপনার বন্দীর পিসির নম্বর জেনে সঠিক নম্বরে টাকা জমা দিন।

৬) প্রতি দিনই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পিসির টাকা জমা দিতে পারবেন।

৭) তবে আপনি ইচ্ছা করলে ডাকযোগে মানি অর্ডারের মাধ্যমে পিসির টাকা জমা করতে পারবেন।

৮) পিসিতে জমাকৃত টাকা দ্বারা বন্দীগন কারা অভ্যান্তরের ক্যান্টিন থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ও খাদ্য দ্রব্য সুলভ মূল্যে ক্রয় করতে পারেন।

 

ক) কারা তত্ত্বাবধায়ক টেলিফোন নং-০৬৪১-৬৫৪৬৩,।